1. [email protected] : 71sangbad 71sangbad : 71sangbad 71sangbad
  2. [email protected] : Admin :
  3. [email protected] : alokito71sangbad alokito71sangbad : alokito71sangbad alokito71sangbad
  4. [email protected] : Daily Alokito : Daily Alokito
  5. [email protected] : Frilix Group : Frilix Group
  6. [email protected] : Gazi Saidur : Gazi Saidur
  7. [email protected] : shihab :
বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০৭:৪৫ অপরাহ্ন

বিজ্ঞাপন

সাপাহারে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে আটক-১-দৈনিক অালোকিত ৭১ সংবাদ

Reporter Name
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ৩১ জুলাই, ২০২০
  • ১৫৯ বার পড়া হয়েছে

মোঃ শহিদুল ইসলাম-নওগাঁ জেলা প্রতিনিধিঃ

নওগাঁর সাপাহারে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এক যুবককে আটক করেছে থানা পুলিশ।

মামলা সুত্রে জানা যায়, এজাহার নামীয় গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ সুলতান মাহমুদ (৩৫), পিতা-মৃত আলতাফ হোসেন, সাং-জয়পুর মাষ্টারপাড়া, এর টিনসেট মেসে ভাড়া থাকিতো মোছাঃ ময়না খাতুন (২৭) তার স্বামী আ: সালাম (৩৮)। বিবাহের পর হইতে তার স্বামী আ: সালাম যৌতুক চাহিয়া প্রায়ই বাদীনির মেয়ে ময়না খাতুন কে শারিরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতো। ধৃত আসামী সুলতান মাহমুদের  প্ররোচনা ও কু-পরামর্শে বাদীনির মেয়েকে বাবার বাড়ি থেকে  উক্ত মেসে যাইতে বলে। স্বামীর প্রতি বিশ্বাস রাখিয়া উক্ত মেসে ১নং আসামী সালামের (০৭)  ঘরে গেলে ধৃত আসামী সুলতান মাহমুদ  বাদীনির মেয়েকে প্রকাশ্যে বলে যে, কিরে টাকা আনছিস? একপর্যায়ে গত ২৫ জুলাই দুপুরে ধৃত আসামী সুলতান মাহমুদ  এর সহায়তায় ১নং আসামী তাহার হাতে থাকা ধারালো চাকু দিয়া বাদীনির মেয়ের শরীরের বিভিন্নস্থানে এলোপাতাড়ী ভাবে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা ও মারাত্মক জখম করে। শুক্রবার সকালে এবিষয়ে সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই এর সাথে কথা হলে তিনি জানান, মেয়ের মা সাপাহার থানায় মামলা নং-২৬, তারিখ-২৯/০৭/২০২০ খ্রিঃ, ধারা-১১(ক)(খ)/৩০, ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী-২০০৩ আইনে মামলা করেন। আসামী  সুলতানকে আটক করে বৃহস্পতিবার দুপুরে নওগাঁ জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে এবং পাষন্ড স্বামী আ: সালামকে গ্রেফতারের প্রক্রিয়া চলছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© All rights reserved © 2019 Breaking News
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )