1. [email protected] : 71sangbad 71sangbad : 71sangbad 71sangbad
  2. [email protected] : Admin :
  3. [email protected] : alokito71sangbad alokito71sangbad : alokito71sangbad alokito71sangbad
  4. [email protected] : Daily Alokito : Daily Alokito
  5. [email protected] : Frilix Group : Frilix Group
  6. [email protected] : Gazi Saidur : Gazi Saidur
  7. [email protected] : shihab :
শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ০৭:৪০ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
বরগুনার আমতলীতে ডায়েরিয়া পরিস্থিতি ভয়াবহ, স্যালাইন সংকট কুমারখালী থানার অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমানের যোগদানের এক বছর!! মুন্সীগঞ্জে লকডাউনে বাড়ী ও দোকান ভাড়া মওকুফ করতে মালিকদের প্রতি আহবান ভাড়াটিয়াদের মৌলভীবাজারে চার লক্ষ টাকা ছিনতাই অভিনয় কারি রিপন দেবনাথ। রাজশাহীর পুঠিয়ায় এমপি মনসুরের পক্ষ থেকে রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগ নেতা শান্তর মাস্ক বিতরণ। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আধুনিক বাসভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন সুজানগরে মাহে রমজানে টিসিবি’র ভ্রাম্যমাণ পণ্য বিক্রয়ের উদ্বোধন করেন- শাহীনুজ্জামান এম মনিরুজ্জামান,পাবনা: পাবনায় ৩৯০ বোতল ফেনসিডিল ও প্রাইভেটকার সহ ২ জন আটক রতন সরকারকে হত্যাচেষ্টাকারীদের গ্রেুপ্তারে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম পত্নীতলায় সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনের দাবী

বিজ্ঞাপন

মানিকগঞ্জের কলা চাষিরা ভাল নেই

Reporter Name
  • প্রকাশিত: সোমবার, ২৪ আগস্ট, ২০২০
  • ১১১ বার পড়া হয়েছে

মো আরিফুর রহমান অরি, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধিঃদু, দফা বন্যায় ভাল নেই মানিকগঞ্জের কলা চাষিরা। বনার পানিতে প্রায় সব কলা গাছ ডুবে মরে গেছে। এতে জেলার ৭টি উপজেলার কলা চাষীরা আর্থিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।মানিকগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, জেলার সাটুরিয়া, সিংগাইর, মানিকগঞ্জ সদর, হরিরামপুর, দৌলতপুর, ঘিওর ও শিবালয় উপজেলার বৃস্তীর্ণ জমিতে বিভিন্ন জাতের কলা চাষ করে থাকে। চলতি বছরে প্রায় ৫ শত হেক্টর জমিতে কলা চাষ করছিল কৃষকরা। এতে ৪ হাজার ৮শত ৩৮ মেট্রিক টন কলা নষ্ট হয়ে গেছে।কামতা গ্রামে কলা চাষি ডা. মো. কুলম উদ্দিন বলেন, এ বছর ১৬০ শতাংশ জমিতে শুভরি কলা চাষ করেছিলাম। বন্যার পানতে সবই নষ্ট হয়ে গেছে। এত আমার প্রায় ২ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার কলা বন্যার কারনে নষ্ট হয়ে গেছে।দৌলতপুর উপজেলার ধামশর ইউনিয়নের নাটুয়াবাড়ি গ্রামের কলা চাষি আব্দুস সালাম বলেন, আমার ৫০ শতাংশ জমিতে কলা চাষ করেছিলাম। আমার কলা প্রায় পাকার উপযোগী হয়েছিল। এতে ৫ শত কলার কাইন ছিল। এক লক্ষ টাকা দাম বলেছিল কলার বেপারীরা। কিন্তু বন্যার কারনে আমার কলা ও গাছ ডুবে গেছে। দ্বার দেনা করে ৭৫ হাজার টাকা খরচ করে কলা চাষ করেছিলাম। কলা বিক্রি করতে পারলে আমার ২৫ হাজার টাকা বিকি করতে পারতাম।এ ব্যাপারে মানিকগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ- পরিচালক মো. শাজাহান আলী বিশ্বাস বলেন, জেলার সব কলা চাষীরা সম্পুর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হননি। কোন কোন কলা চাষীদের আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। সব কলা ক্ষতিগ্রস্ত চাষীদের তালিকা করা হয়েছে। পর্বতীতে তাদের বিভিন্ন ভাবে সহযোগীতা করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© All rights reserved © 2019 Breaking News
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )